স্বল্প খরচে কক্সবাজার

ভ্রেমন আমরা সকলেই পছন্দ করি ও ভালবাসি। অথচ সময় কিংবা অর্থের কারনে আমরা অনেক সময় মনে চাইলেও ভ্রমনে যেতে পারি না। ব্যপারটা অত্যন্ত দুঃখ জনক হলেও সত্যি যে যখন আমাদের সময় হয় তখন আমাদের কাছে টাকা থাকে না। যেমন, আমাদের ছাত্র জীবন । অনুরূপ ভাবে কর্মজীবনে আমাদের কিছু টাকা হয় কিন্তু সময় হয় না ।

তাই একটু সময় ও টাকার ব্যবস্থা করেই আমরা যে কোন সময় ভ্রমনে যেতে পারি। আর একটু বুদ্ধি করে চললে আমরা কিছু টাকা ও সময় দুটাই সেভ করতে পারি। এখানে স্বল্প খরচে কক্সবাজার ঘোরার জন্য কিছু পরামর্শ-

  1.  নন-এসি বাসে রাতে ভ্রমণ করুন। রাতের তাপমাত্রা সাধারণত একটু কম থাকে। এছাড়া রাতে ভ্রমনের কারণে এক রাতের হোটেল ভাড়া বেচে যাবে। নন-এসির ক্ষেত্রে ইউনিক পরিবহন, শ্যামলী পরিবহন দেখতে পারেন, এদের সিট এবং ড্রাইভাররা ভালো।
  2. সাধারণ ট্রাভেল ব্যাগের পরিবর্তে ব্যাপকপ্যাক মানে পিঠে ঝুলানো যায় এমন ব্যাগ বহন করুন। সাধারণত ট্রলি ধরণের ব্যাগ ব্যবহারের কারণে আপনার চলাচলের সিমাবদ্ধতা তৈরি হয়। ফলে অপ্রয়োজনিয় খরচ বেড়ে যায়।
  3. বিচ থেকে কিছুটা দূরে হোটেল ঠিক করবেন। গলির ভিতরে হলেও কোন সমস্যা নেই। প্রথমে একজন যেয়ে দরাদরি করে রুম ঠিক করুন, পরে বাকীদের ডেকে আনুন। ভাড়া অর্ধেক হয়ে যাবে। রিক্সাওয়ালা, অটো/সিএনজি চালকদের পরামর্শে হোটেল নিবেন না, কারণ তারা হোটেল থেকে কমিশন পেয়ে আপনাদের বিভ্রান্ত করবে।
  4. বিচ থেকে হেটে হেটেই আসা যাওয়া করুন। রিকশা বা অটো নিতে হলে দরদাম করে উঠুন।
  5.  খাবারের ক্ষেত্রে কয়েকজন থাকলে মূল আইটেম গুলো ভাগ করে খান। উদাহরণ: ৪ জনের জন্য ১. ভাত ৪ টা (১২০ টাকা) ২. হাফ মিক্সড ভাজি-ভর্তা (৮০ টাকা) ৩. লইট্যা মাছ ১ টা (১২০ টাকা) ৪. ডাল ১ টা (৩০ টাকা) ৫. গরু/মুরগি/মাছ ১ টা (১২০ টাক) সব মিলে গড়ে প্রায় ১২০ টাকা করে প্রতিজন।
  6. ভুলেও রপচান্দা (আসলে কালি চান্দা) বা চিংড়ি মাছ অর্ডার করবেন না।
  7.  হিমছড়ি যেতে হলে কলাতলি মোড় থেকে লোকাল অটোতে উঠে যান। যতটা মনে পড়ে ২০ টাকা করে ভাড়া। আর ৫/৬ জন হলে একটা দরাদরি করে একটা অটো ঠিক করে নেন।
  8. কলাতলি মোড় থেকে লোকাল অটো বা জীপে করে ইনানিও যেতে পারেন।
  9. রাতে গাড়ী থাকলে দুপুরের আগে চেক আউট টাইম অনুসারে হোটেল ছেড়ে দিন। হোটেল কর্তৃপক্ষকে বলে আপনার ব্যাগ হোটেলে চেক আউট লাগেজ হিসেবে রাখার ব্যবস্থা করে আপনি ঘুরে বেড়ান।
  10.  যদি সম্ভব হয় কর্মদিবস গুলোতে যাবেন (রবি থেকে বৃহস্পতি), সে সময় ভিড় কম থাকবে, হোটেল ভাড়াও কম থাকে। তিন দিনের বন্ধ, ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ এগুলো এড়িয়ে যাবেন।

তথ্য সূত্র: tob wiki

তথ্য সংগ্রহ ও উপস্থাপনায়: ভ্রমণ পাগল,
সর্বশেষ আপডেট হয়েছে: আগস্ট 6, 2017