ভিন্ন জগত – রংপুর

যান্ত্রিক জীবনের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে আমাদের মাঝেমধ্যেই মনে হয়, যদি পারতাম চেনা গণ্ডি ছেড়ে দূরে অন্য কোথাও চলে যেতে! অনেকেরই ইচ্ছে হয়, অন্তত একদিনের জন্য সব ব্যস্ততা ভুলে সুন্দর একটি দিন কাটাতে! আর মানুষের এই স্বভাবসুলভ ইচ্ছাকে পূরণ করতেই আজ আমরা আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেব ‘ভিন্ন জগতের’ সঙ্গে। হ্যাঁ, ভিন্ন জগৎ। রংপুরের ভ্রমণ স্পটগুলোর একটি। এই জগতের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও মনোরম পরিবেশ আপনাকে মুক্তি দেবে যান্ত্রিক জীবনের ব্যস্ততা থেকে।

রংপুরের ভ্রমণ স্পটগুলোর মধ্যে ভিন্ন জগৎ(Bhinno Jagat) অন্যতম। এটি রংপুরের সবচেয়ে বড় পিকনিক স্পট ও পর্যটনকেন্দ্র। রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলার গঙ্গীপুরে এর অবস্থান। টিকেট কেটে পার্কে প্রবেশের পর লোহার ব্রিজ, তা পেরোলেই জগৎটা ভিন্ন হয়ে যায়।

ভিন্ন জগতের অন্যতম একটি বৈশিষ্ট্য হলো, এখানে রয়েছে বাংলাদেশের প্রথম প্লানেটেরিয়াম। প্লানেটেরিয়ামে ঢোকার পর আপনি হারিয়ে যাবেন গ্রহ-নক্ষত্রের ভিড়ে। জানতে পারবেন ‘মহাবিস্ফোরণ বা বিগব্যাং’-এর মাধ্যমে পৃথিবী সৃষ্টির ইতিহাস।

গ্রামবাংলার ঐতিহ্য এবং আধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়ে বেসরকারিভাবে গড়ে ওঠা ভিন্ন জগতে দেখতে পাবেন পিকনিকের জন্য কটেজ, পাখিদের অভয়ারণ্য, শপিংমল, ৫০০ আসনবিশিষ্ট আধুনিক কনফারেন্স কেন্দ্র, কমিউনিটি সেন্টার, স্কিল টেস্ট রোবট জোন ও সুইমিংপুল। আরো রয়েছে শিশু-কিশোরদের জন্য শিশুকানন, মেরিগো রাউন্ড, হেলিকপ্টার ফ্লাইজোন, নাগরদোলা, ক্যাঙ্গারু মুভিং, স্পাইডার জোন, বাম্পার কার, রেসিং হর্স, সি-প্যারাডাইস, মকি ট্রেন, জলতরঙ্গ, আজব গুহা, থ্রিডি মুভি, বরফের দেশ, স্পেস জার্নি, শাপলা চত্বর, বীরশ্রেষ্ঠ ও ভাষাসৈনিকদের ভাস্কর্য এবং বিশাল আকৃতির নিজস্ব লেকে নৌ-ভ্রমণের ব্যবস্থা। বিভিন্ন উৎসবকে কেন্দ্র করে ভিন্ন জগতে কনসার্টসহ নানা ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। পর্যটকদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ভিন্ন জগতে রয়েছে একটি তথ্যকেন্দ্র, যা পর্যটকদের বিভিন্ন ধরনের তথ্য দিয়ে ও হারানো জিনিস খুঁজে পেতে সাহায্য করে।

কিভাবে যাবেনঃ

ঢাকা থেকে রংপুর যাওয়ার জন্য সবচেয়ে ভালো পরিবহন হলো গ্রিনলাইন ও টি আর ট্রাভেলস। এ ছাড়া এ রুটে আগমনী পরিবহন, এসআর, শ্যামলী, হানিফ, কেয়া ইত্যাদি পরিবহনের সাধারণ বাস চলাচল করে। ঢাকার কল্যাণপুর ও গাবতলী থেকে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে ছাড়ে এসব বাস। সড়কপথ ছাড়াও রেলপথে রংপুর যাওয়া-আসা সম্ভব। ঢাকা ছাড়া অন্যান্য শহর থেকেও রংপুর যাওয়ার জন্য ভালো পরিবহন ও যোগাযোগব্যবস্থা রয়েছে। রংপুর মেডিকেল মোড় থেকে খুব সহজেই বাস অথবা অটোতে করে যাওয়া যায় ভিন্ন জগৎ। বাসে গেলে পাগলা পীর এলাকায় নেমে আবার অটো নিতে হবে ভিন্ন জগতের উদ্দেশে। রংপুরের পাগলা পীর থেকে ভিন্ন জগতের ফটক পর্যন্ত ১৫ থেকে ২০ মিনিটের রাস্তা। ভিন্ন জগতে গাড়ি পার্কিংয়েরও ব্যবস্থা রয়েছে। বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের জন্য বিভিন্ন মূল্য পরিশোধ করে গাড়ি পার্ক করা যায়।

ভিন্ন জগৎ বছরজুড়েই সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকে। পার্কে প্রবেশের মূল্য ৫০ টাকা। প্রতিটি রাইডের টিকেট মিলবে জনপ্রতি ৫ থেকে ৩০ টাকায়।

কোথায় থাকবেনঃ

আর থাকতে চাইলে ভিন্ন জগতের রিসোর্টে উঠতে পারেন। এ ছাড়া থাকার জন্য রংপুর শহরও উত্তম। এখানে অনেক ভালো মানের হোটেল রয়েছে। ভালো হোটেলের মধ্যে রয়েছে হোটেল শাহ আমানত (জাহাজ কোম্পানির মোড়), হোটেল গোল্ডেন টাওয়ার (জাহাজ কোম্পানির মোড়), হোটেল দি পার্ক (জাহাজ কোম্পানির মোড়), হোটেল তিলোত্তমা (থানা রোড), হোটেল বিজয় (জেল রোড), আরডিআরএস (জেল রোড)। এ ছাড়া আরো অনেক হোটেল রয়েছে রংপুরে। আপনি পছন্দমতো সেসবের একটিতে উঠতে পারেন। খরচ খুব বেশি নয়।

সবুজ শ্যামল মায়াময় এ স্থানটিতে না গেলে বোঝা যায় না, কতটা আকর্ষণীয় এই ভিন্ন জগৎ। সব মিলিয়ে বিনোদনের এক অপূর্ব সমাহার ভিন্ন জগৎ, যা বাংলাদেশের পর্যটনশিল্পে যোগ করেছে নতুন মাত্রা।

তথ্য সংগ্রহ ও উপস্থাপনায়: ভ্রমণ পাগল,
সর্বশেষ আপডেট হয়েছে: ফেব্রুয়ারী 23, 2018

ভিন্ন জগত – রংপুর, সম্পর্কে পর্যটকদের রিভিউ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.